ফিচার বাংলাদেশ সর্বশেষ

মাস জুড়ে থাকবে প্রকৃতির দ্বৈত আচরণ

মাস জুড়ে থাকবে প্রকৃতির দ্বৈত আচরণ

চলতি মাসে আরো দু’টি কালবৈশাখী ঝড়ের আশংকা করছে আবহাওয়া অধিদপ্তর। পাশাপাশি এপ্রিল জুড়েই থাকবে আবহাওয়ার দ্বৈত আচরণ।

আবহাওয়া অধিদপ্তরের পরিচালক সামছুদ্দিন আহমেদ বলেন, এবার কালবৈশাখী কিছুটা আগেই শুরু হয়ে গেছে বলা যায়। তাছাড়া বিগত এক সপ্তাহের মধ্যে দু’টি ঝড় হয়ে যাওয়ার কারণেও এমনটা ভাবছেন অনেকে। আবহাওয়ার আচরণ স্বাভাবিকই আছে বলা যায়।

এ মাসে আরো দু’টি কালবৈশাখী ঝড় বয়ে যাওয়ার আশংকা করছে আবহাওয়া অধিদপ্তর। যার একটি হতে পারে এই মাসের ১৭ থেকে ২১ তারিখের মধ্যে যেকোনো সময়ে। অপরটি আঘাত হানার সম্ভাবনা রয়েছে মাসের শেষে। এছাড়াও পহেলা বৈশাখে রাজধানীতে বৃষ্টি হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে।

আবহাওয়াবিদ বজলুর রশীদ বলেন, এ মাসে প্রকৃতি দ্বৈত আচরণ করবে। এখন যেমন বৃষ্টি চলছে, সেটা থামলেই আবার তাপমাত্রা বেড়ে যাবে। আবার পাঁচ-ছয় দিন পর কালবৈশাখী ঝড় শুরু হবে। বৈশাখের পর প্রকৃতির বৈরিতা কিছুটা কমতে পারে। তখন সূর্যের তেজ অস্বাভাবিক হয়ে পড়ার সম্ভাবনাও রয়েছে।

এপ্রিলে দেশের বিভিন্ন স্থানে ভারী বৃষ্টিপাত এবং শিলাবৃষ্টির সম্ভাবনার পাশাপাশি বঙ্গোপসাগরে নিম্নচাপ ও ঘূর্ণিঝড়ের সৃষ্টি হতে পারে বলে জানিয়েছেন বজলুর রশীদ। তবে দেশের উত্তরাঞ্চলের তাপমাত্রা এই মাসে দক্ষিণাঞ্চলের তুলনায় শুষ্ক যাবে। আবহাওয়া অফিস বলছে, রংপুর ও রাজশাহীর কোথাও দাবদাহের কারণে তাপমাত্রা ৪০ ডিগ্রি সে. হতে পারে।

আবহাওয়া অফিসের এক কর্মকর্তা জানিয়েছেন, ঢাকায় ১৩০ থেকে ১৬৫ মিলিমিটার, ময়মনসিংহে ১৩৫ থেকে ১৭৫ মিলিমিটার, চট্টগ্রামে ১৩০ থেকে ১৬৫ মিলিমিটার, সিলেটে ২৬৫ থেকে ৩৪০ মিলিমিটার, রাজশাহী ৭৫ থেকে ৯৫ মিলিমিটার, রংপুর ৮৫ থেকে ১১০ মিলিমিটার, খুলনায় ৬৫ থেকে ৯০ মিলিমিটার এবং বরিশালে এপ্রিল মাসে ১২০ থেকে ১৫০ মিলিমিটার বৃষ্টিপাত হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে।

এছাড়া ও ঢাকায় আগামী বারো ঘণ্টায় স্বল্পমাত্রায় বৃষ্টির সম্ভাবনা রয়েছে বলেও জানিয়েছেন তিনি।

Comments