ফিচার বাংলাদেশ রাজনীতি ক্যাম্পাস মতামত

সোহাগ-জাকিরকে দুষছেন শোভন-রাব্বানী

সোহাগ-জাকিরকে দুষছেন শোভন-রাব্বানী

কেন্দ্রীয় সম্মেলনের এক বছর পর পূর্ণাঙ্গ কমিটি ঘোষণা করেছে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগের ভ্রাতৃপ্রতিম ছাত্র সংগঠন বাংলাদেশ ছাত্রলীগ। কমিটিতে নিজস্ব লোকদের পদায়ন নিয়ে ছাত্রলীগের সাবেক ও বর্তমান সভাপতি-সাধারণ সম্পাদকের দ্বন্দ্ব প্রকাশ্যে এসছে। আর এ কারণেই ছাত্রলীগের ভেতরে অস্থিরতা বিরাজ করছে।

জানা গেছে, কমিটির পদের ভাগ-বাটোয়ারা নিয়ে সদ্য সাবেক ও বর্তমানদের মধ্যে বেশ আগ থেকেই দূরত্ব সৃষ্টি হয়েছে। কমিটিতে নিজেদের প্রভাব বজায় রাখতে উভয় পক্ষই কোন ধরণের ছাড় দিতে রাজি ছিলেন না। ফলে সোহাগ-জাকিরের মতামত না নিয়েই কমিটি পূর্ণাঙ্গ করে শোভন-রাব্বানী। আর এর পরেই পূর্ণাঙ্গ কমিটিতে নানা বিতর্কের অভিযোগ তুলে আন্দোলনে নামেন ছাত্রলীগের পদ বঞ্চিতরা। যদিও পূর্ণাঙ্গ কমিটির পদ বঞ্চিতদের মধ্যে যারা আন্দোলন করছেন তাদের প্রায় বেশিরভাগই সোহাগ-জাকিরের অনুসারী।

সম্প্রতি এক সংবাদ সম্মেলনে সদ্য সাবেক সভাপতি সাইফুর রহমান সোহাগ এবং সদ্য সাবেক সাধারণ সম্পাদক জাকির হোসেনের বিরুদ্ধে কমিটি গঠনে অসহযোগিতার অভিযোগ তোলেন ছাত্রলীগ সাধারণ সম্পাদক গোলাম রাব্বানী। তিনি বলেন, সবচেয়ে বড় কথা আমাদের সদ্য সাবেকদের কাছ থেকে প্রত্যাশিত সহযোগিতা পায়নি। যদি আমরা সেই সহযোগিতা পেতাম তাহলে কমিটি আরো ৬ মাস আগে করা যেত। আমার ওপেন বলতে বাঁধা নেই, আমরা যখন বসেছি সেই সত্যটা আমাদের কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের নেতৃবৃন্দ উপলব্ধি করতে সক্ষম হয়েছেন, যে দেশরত্ন শেখ হাসিনা কমিটিকে ব্যার্থ প্রমাণ করতে তারা বরাবরই অসহযোগিতা করে এসেছেন। যখনই বসেছি তারা উদ্ভট নাম বলেছে, এমনভাবে বলেছে যে তারাই বর্তমান প্রেসিডেন্ট সেক্রেটারি, আর আমরাই সাবেক বা আমরাই তাদের সাজেশন করছি।

তিনি বলেন, ১১ জন জয়েন্ট সেক্রেটারির মধ্যে ৯ জনের নাম লিখে বর্তমান সভাপতি সাধারণ সম্পাদককে বলা হয় আপনি একটা নাম বলুন, আপনি একটি নাম বলুন। সেই কমিটি তো ডিলে হবেই। এইভাবে বিভিন্ন প্রক্রিয়ার মাধ্যমে আমরা ৭-৮ বার বসেছি। তারা কোন নাম বলছে না, আগের কমিটিটা পুর্নবহাল করে দিলে তাদের ভালো হত। তারা এই সত্যটা মেনে নিতে পারছে না বলে তারা এই নোংরা খেলা খেলেছে।

এ সময় থাকা ছাত্রলীগের সভাপতি রেজওয়ানুল হক চৌধুরী শোভন মাথা নেড়ে অভিযোগের বিষয়ে সম্মতি দেন।

এ বিষয়ে ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি সাইফুর রহমান সোহাগ ও সাবেক সাধারণ সম্পাদক এসএম জকির হোসেনের সাথে যোগাযোগের চেষ্টা করা হলে তারা কেউ ফোন ধরেন নি।

Comments