ফিচার বাংলাদেশ ক্যাম্পাস সর্বশেষ শিক্ষা

সড়কে শিক্ষকের বস্তা বন্দি লাশ, বিক্ষোভে শিক্ষার্থীরা

সড়কে শিক্ষকের বস্তা বন্দি লাশ, বিক্ষোভে শিক্ষার্থীরা

‘নিখোঁজ’ হওয়ার পরদিন মদন মোহন কলেজের প্রভাষক সাইফুর রহমানের লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। রোববার সিলেটের দক্ষিণ সুরমার তেলিরাই এলাকায় রাস্তার পাশে তার লাশ পড়ে থাকতে দেখে এলাকাবাসী পুলিশে খবর দেয়। নিহত সাইফুর রহমান গোয়াইনঘাটের ফুলতৈল গ্রামের ইউসুফ আলীর ছেলে। তার মৃত্যুর খবর পেয়ে দুপুরে নগরীর লালাবাজার এলাকায় রাস্তা অবরোধ করে বিক্ষোভ করেন তার কলেজের শিক্ষার্থীরা।

গত শনিবার সকাল ১১টার পর মদন মোহন কলেজের ইসলামের ইতিহাসের প্রভাষক সাইফুর রহমান নিখোঁজ ছিলেন বলে স্বজনরা জানিয়েছেন। গতকাল তার লাশ উদ্ধারের কিছুক্ষণ আগে স্বজনরা নগরীর শাহপরাণ থানায় সাধারণ ডায়েরি করতে যান। এমন সময় তারা লাশ উদ্ধারের খবর পান বলে জানান শাহপরাণ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আখতার হোসেন।

এদিকে লাশের মুখে ও গলায় আঘাতের চিহ্ন রয়েছে বলে জানিয়েছেন দক্ষিণ সুরমা থানার ওসি খায়রুল ফজল। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক পুলিশের এক কর্মকর্তা বলেন, একদিন আগে নিখোঁজ হলেও লাশ দেখে মনে হচ্ছে, আরও আগে নির্যাতন করে লাশ এনে রাস্তার পাশে ফেলে দেওয়া হয়েছে। ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ময়নাতদন্ত শেষে গতকাল বিকেলে লাশ পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে।

তিনি বলেন, ময়নাতদন্ত প্রতিবেদন পাওয়া গেলে হত্যার কারণ ও সময় সম্পর্কে নিশ্চিত হওয়া যাবে। সাইফুর রহমান নগরীর মদন মোহন কলেজের পাশাপাশি গোয়াইনঘাটের তোয়াকুল কলেজেও পড়াতেন। এদিকে প্রভাষক সাইফুর রহমানের হত্যার প্রতিবাদে দুপুর ২টার দিকে নগরীর লালাবাজার এলাকায় রাস্তা অবরোধ করে বিক্ষোভ করেন মদন মোহন কলেজের শিক্ষার্থীরা।

এ সময় তারা রাস্তায় টায়ার জ্বালিয়ে খুনির গ্রেফতার ও ফাঁসির দাবি জানায়। এতে রিকাবীবাজার-শেখঘাট ভিআইপি সড়ক, জিন্দাবাজার-লামাবাজার-ভাতালিয়া সড়কে যানবাহন চলাচল বন্ধ হয়ে যায়। এই খবর পেয়ে কলেজের শিক্ষক ও পুলিশ গিয়ে শিক্ষার্থীদের বুঝিয়ে অবরোধ প্রত্যাহার করান।

পরিবারের বরাত দিয়ে পুলিশ জানায়, সাইফুর রহমান নগরীর টিলাগড় এলাকার জমিদারবাড়ি নামের বাসার একটি মেসে থাকতেন। গত শনিবার সকাল ১১টার দিকে তিনি মেস থেকে বের হওয়ার পর আর ফেরেননি।

পুলিশের এক কর্মকর্তা বলেন, নিহতের গলার পাশাপাশি মুখে আঘাতের রক্তাক্ত চিহ্ন রয়েছে। এতে মনে হচ্ছে, অন্য কোনো জায়গায় নির্যাতন করে খুনের পর লাশ রাস্তার পাশে এনে ফেলা হয়েছে। পুলিশের পাশাপাশি পিআইবির একটি টিম সাইফুর রহমানের লাশের সুরতহালের পাশাপাশি বিভিন্ন আলামত সংগ্রহ করেছে। দক্ষিণ সুরমা থানার ওসি খায়রুল ফজল বলেন, বিষয়টি গুরুত্ব দিয়ে দেখা হচ্ছে।

Comments