ফিচার বাংলাদেশ সর্বশেষ

২৩ এপ্রিল থেকে ভোটার তালিকা হালনাগাদ শুরু

২৩ এপ্রিল থেকে ভোটার তালিকা হালনাগাদ শুরু

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের কারণে স্থগিত ভোটার তালিকা হালনাগাদ আগামী ২৩ এপ্রিল থেকে শুরু হবে। ২০০১ সালের ১ জানুয়ারির আগে যারা জন্ম গ্রহণ করেছেন তারা এবার ভোটার তালিকায় অর্ন্তভুক্ত হতে পারবেন।

সোমবার নির্বাচন কমিশনের কমিশন সভায় এ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়।

ইসির অতিরিক্ত সচিব মুখলেছুর রহমান বলেন, আগামী ২৩ এপ্রিল থেকে সারাদেশে ভোটার তালিকা হালনাগাদ কার্যক্রম শুরু হবে। এ বিষয়ে আজকের কমিশন সভায় সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। তবে এ বিষয়ে শিগগিরই লিখিত চিঠি জারি করা হবে।

তিনি বলেন, আজকের কমিশন সভায় ২৩ এপ্রিল ভোটার তালিকা হালনাগাদকরণ শুরু করার বিষয়ে আলোচনা শেষে সিদ্ধান্ত হয়েছে। তবে এ বিষয়ে লিখিত চিঠি জারি করার পর তা চুড়ান্ত হবে।

এর আগে সোমবার বিকাল ৩টায় প্রধান নির্বাচন কমিশনার কেএম নূরুল হুদার সভাপতিত্বে ইসির কমিশন সভা শুরু হয়। এতে ইসির চার কমিশনার, ইসি সচিবসহ সংশ্লিষ্ট বিভাগের কর্মকর্তারা অংশগ্রহণ করেন। সভায় ভোটার তালিকা হালনাগাদকরণ ছিল মিটিংয়ের প্রথম এজেন্ডা।

এছাড়াও ইসি সচিবালয় ও এনআইডি শাখার জনবল সৃজন এবং স্মার্ট কার্ড সংক্রান্ত বিষয়ে ফ্রান্সের প্রতিষ্ঠান ওবার্থের সঙ্গে চুক্তি বাস্তবায়নে করনীয় এবংবিবিধ বিষয় মিটিংয়ের এজেন্ডায় ছিল। তবে সব কয়টি বিষয়ে সভায় সিদ্ধান্ত নিতে না পারায় আগামী ১০ এপ্রিল সভাটি আবারো হবে।

ইসির একটি সূত্র জানিয়েছে, একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের কারণে স্থগিত হওয়া ভোটার তালিকা হালনাগাদ কার্যক্রম আগামী ২৩ এপ্রিল থেকে ফের শুরু করার বিষয়ে সিদ্ধান্ত নিয়েছে নির্বাচন কমিশন (ইসি)। এছাড়াও ভোটার তালিকা হালনাগাদ কার্যক্রম তালিকা থেকে মৃত ভোটারের নামও বাদ দেওয়া হবে। হালনাগাদের সময় যারা আবাসস্থল পরিবর্তন করেছেন বা যাদের ঠিকানা পরিবর্তন হয়েছে, তারাও সুযোগ পাবেন সংশোধনের।

ইসি সূত্র জানায়, বাড়ি বাড়ি গিয়ে ইসির নিয়োগ করা তথ্য সংগ্রহকারীরা তথ্য নেয়ার তিন সপ্তাহ পর নির্দিষ্ট নিবন্ধন কেন্দ্রে গিয়ে সংশ্লিষ্টদের চোখের আইরিশের প্রতিচ্ছবি ও দশ আঙুলের ছাপ দিতে হবে। আর নিবন্ধন কেন্দ্র স্থাপন করা হবে প্রতিটি ওয়ার্ডে।

প্রতি দুই হাজার নাগরিকের বিপরীতে একজন করে তথ্য সংগ্রহকারী নিয়োগ দেওয়া হবে। পাঁচজন তথ্য সংগ্রহকারীর জন্য থাকবেন একজন সুপারভাইজার। প্রতি ৭০ জন নাগরিকের জন্য একজন করে ডাটা এন্ট্রি অপারেটর নিয়োগ করা হবে। যারা ভোটারদের তথ্য সিস্টেমে অন্তর্ভুক্ত করবেন।

Comments